web site hit counter Nil darpan, or, The Indigo Planting Mirror: A Drama - Ebooks PDF Online
Hot Best Seller

Nil darpan, or, The Indigo Planting Mirror: A Drama

Availability: Ready to download


Compare

30 review for Nil darpan, or, The Indigo Planting Mirror: A Drama

  1. 5 out of 5

    Muhammad

    ব্রিটিশ শাসনামলে উপমহাদেশে নীলকরদের অত্যাচারের গল্প নীলদর্পণ। এ দর্পণে প্রতিফলিত হয়েছে নীলচাষিদের ওপর নেমে আসা প্রচণ্ড অত্যাচারের ছবি। সাদা চামড়ার নীলকর সাহেবরা কি ভীষণ কালো মনের হতেন সময়ে সময়ে, সে কথা ইতিহাসের বইতে হয়ত অনেকই লেখা আছে কিন্তু সাহিত্যের পাতায় এই ভীষণ কষ্টের সময়টিকে ধরার বড় দরকার ছিলো। দীনবন্ধু মিত্র সে কাজটিই করলেন 'নীলদর্পণ' নাটকে। এই নাটকের নাট্যায়ন এবং এর ইংরাজী অনুবাদ The Indigo Planting Mirror দেশে বিদেশে ব্রিটিশ নীলকরদের বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তোলে যার ফলশ্রুত ব্রিটিশ শাসনামলে উপমহাদেশে নীলকরদের অত্যাচারের গল্প নীলদর্পণ। এ দর্পণে প্রতিফলিত হয়েছে নীলচাষিদের ওপর নেমে আসা প্রচণ্ড অত্যাচারের ছবি। সাদা চামড়ার নীলকর সাহেবরা কি ভীষণ কালো মনের হতেন সময়ে সময়ে, সে কথা ইতিহাসের বইতে হয়ত অনেকই লেখা আছে কিন্তু সাহিত্যের পাতায় এই ভীষণ কষ্টের সময়টিকে ধরার বড় দরকার ছিলো। দীনবন্ধু মিত্র সে কাজটিই করলেন 'নীলদর্পণ' নাটকে। এই নাটকের নাট্যায়ন এবং এর ইংরাজী অনুবাদ The Indigo Planting Mirror দেশে বিদেশে ব্রিটিশ নীলকরদের বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তোলে যার ফলশ্রুতিতে ইন্ডিগো কমিশন গঠন করা হয় নীলচাষিদের অধিকার আদায়ের জন্য। আইন প্রণয়ন করে নীলকরদের ক্ষমতাও অনেকাংশে সংকুচিত করা হয়। এর আগে নীলকর সাহেবেরা তাদের কুঠি বাড়ী বসিয়ে নীলের চাষ করত। চাষিদের জোর করে চাষের জন্য দাদন (অগ্রিম টাকা) দেয়া হত এই কুঠি বাড়ি থেকে। কেউ দাদন নিতে না চাইলে তার ওপর নেমে আসত অমানুষিক নির্যাতন। মারধোর করে মন তো আর ফেরানো যায়না সবসময়। তাই বিদ্রোহী চাষিদের শায়েস্তা করতে নীলকরেরা সবচেয়ে সহজ এবং নোংরা কৌশলটাই অবলম্বন করত। চাষিদের স্ত্রী, কন্যা এদের ধরে আনা হত সাহেবের কুঠিতে। এই কুঠিগুলো এমন অনেক স্ত্রী-কন্যা-মাতার ধর্ষণের সাক্ষী। এই কুঠিগুলো অনেক চাষির বুকে বুটের প্রাণঘাতী লাথিরও সাক্ষী। সত্যজিৎ রায়ের কিছু গল্পেও এমন 'হন্টেড' কুঠির কথা এসেছে। মাসের পর মাস চলে যেত, গরীব চাষিরা তাদের নীল চাষের মজুরি কখনও পেতনা। এ নিয়ে গোল পাকাবারও বেশী একটা অবকাশ ছিলোনা। তাহলেই তো স্ত্রীর বা কন্যার ডাক পড়বে কুঠিবাড়ীতে। চাষির বউ তুলে আনা, গ্রামকে গ্রাম আগুনে জ্বালিয়ে দেয়া, সন্তানসম্ভবা মা'র পেটে ঘুঁষি মেরে গর্ভপাত করিয়ে দেয়া, জমি কেড়ে নেয়া; কি করতে না বাকি রেখেছে "ব্রিটিশ লায়নেরা"! ভাবতে গেলে আজ ২০০ বছর পরেও শিহরিত হতে হয়। সমকালীন সময়ে উপস্থিত থেকে উপরোক্ত ঘটনা গুলোর চাক্ষুষ সাক্ষী হয়ে থাকাটা কী ভয়ানক দুঃস্বপ্নময়! দু'শ বছর পরে যে অত্যাচার এর গল্প পড়ে আমার চোখে পানি আসে, সেই ঘটনার সাক্ষী থেকে দীনবন্ধু মিত্রের কেমন লেগেছিলো? 'নীলদর্পণ' পড়বার সময় অন্ধ এক ক্রোধ ভর করে মাথায়। মন চলে যেতে চায় ২০০ বছর পেছনে। সাহেবের মুখে ঘন ঘন শোনা 'বাঞ্চত' কথাটিকে বুট জুতো বানিয়ে বহুগুণে তাকে ফেরত দিতে বড় ইচ্ছে করে। বেঁচে থাকুক 'নীলদর্পণ', আমাদের বাঙ্গালীদের মনে, ক্রোধ আর কান্নার দীর্ঘশ্বাস হয়ে। বেঁচে থাকুক The Indigo Planting Mirror ব্রিটিশদেরও মনে, ব্রিটিশ পতাকা 'ইউনিয়ন জ্যাক' এর নীল রঙের মাঝে।

  2. 5 out of 5

    Suraiya Ratri

    The ending is a bit of a mess no? I'm not asking for a happy ending in a play like this but it could have been less chaotic. Tragedy doesn't necessarily mean pointless deaths left and right. Anyway, a good read. Such a shame people suffered so terribly The ending is a bit of a mess no? I'm not asking for a happy ending in a play like this but it could have been less chaotic. Tragedy doesn't necessarily mean pointless deaths left and right. Anyway, a good read. Such a shame people suffered so terribly

  3. 5 out of 5

    Nafia Zalal

    বইটা হাত থেকে রেখে বুঝতে পরলাম যে বইএর অর্ধেকই বুঝিনি।এখন আাপাতত আধবোঝা পড়েই রেটিং দিলাম। যেদিন মনে হবে এখন পড়লে বুঝতে পারব সেদিন পড়ে আবার রিভিউ লিখব। আপাতত ৩ স্টারই থাকুক।

  4. 4 out of 5

    Chiro Pipashito T H

    Although the reading was a little tedious, but it is a depiction of the plight of the indigo farmers in Bengal during the British colonial rule. I would certainly recommend this book to those who love classics and history.

  5. 5 out of 5

    Shaimon

    দীনবন্ধু মিত্রের ঐতিহাসিক নাটক "নীল দর্পণ", নাটকটির সাহিত্যিক মান যাই হোক না কেন এর ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট অসাধারণ,যে সময়ে নাটকটি রচিত হয়েছে মূলত সেই সময়ই একে এবং এর নাট্যকারকে বিখ্যাত করেছে,সব মিলিয়ে ভালোই।প্রত্যেকের পড়ে দেখা উচিৎ এই ঐতিহাসিক নাটকটি দীনবন্ধু মিত্রের ঐতিহাসিক নাটক "নীল দর্পণ", নাটকটির সাহিত্যিক মান যাই হোক না কেন এর ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট অসাধারণ,যে সময়ে নাটকটি রচিত হয়েছে মূলত সেই সময়ই একে এবং এর নাট্যকারকে বিখ্যাত করেছে,সব মিলিয়ে ভালোই।প্রত্যেকের পড়ে দেখা উচিৎ এই ঐতিহাসিক নাটকটি

  6. 4 out of 5

    Raunak Ramakrishnan

    It is an old translation of the original Bengali play offering a very interesting perspective from POV of planters of how the ruthless British exploitation for producing indigo deeply affected families, villages and culture itself.

  7. 5 out of 5

    Medul Al-Ayhem

    Masterpiece.... nothing to say....

  8. 4 out of 5

    Fahad Jewel

    প্রাসঙ্গিক কিছু কথাঃ বাংলার স্বাধীনতা সূর্য অস্তমিত হওয়ার শতবর্ষ পেরিয়ে গেছে।সময়কাল ১৮৬০ ইং।বের হয় 'নীল দর্পণ' নাটক।প্রথমে নাম ছিল "নীল দর্পনং নাটকং'।দীনবন্ধু মিত্রের পরিবর্তে ছদ্মনামে বেরিয়েছিল বইটি। স্বাদেশিকতা, নীল বিদ্রোহ ও সমসাময়িক বাংলার সমাজ ব্যবস্থার উপর ভিত্তি করে লেখা এ বইটি পরবর্তীতে ১৮৬১ ইং সনে "Nill Durpan,Or the indigo planting miror" নামে ইংরেজিতে অনূদিত হয়,প্রকাশক ছিলেন রেভারেন্ড জেমস লঙ। জেনে রাখা ভালো, ১। এটিই প্রথম বাংলা নাটক,যা ইংরেজীতে অনূদিত হয়। ২। কোন বিদেশী প্রকাশক দ্ব প্রাসঙ্গিক কিছু কথাঃ বাংলার স্বাধীনতা সূর্য অস্তমিত হওয়ার শতবর্ষ পেরিয়ে গেছে।সময়কাল ১৮৬০ ইং।বের হয় 'নীল দর্পণ' নাটক।প্রথমে নাম ছিল "নীল দর্পনং নাটকং'।দীনবন্ধু মিত্রের পরিবর্তে ছদ্মনামে বেরিয়েছিল বইটি। স্বাদেশিকতা, নীল বিদ্রোহ ও সমসাময়িক বাংলার সমাজ ব্যবস্থার উপর ভিত্তি করে লেখা এ বইটি পরবর্তীতে ১৮৬১ ইং সনে "Nill Durpan,Or the indigo planting miror" নামে ইংরেজিতে অনূদিত হয়,প্রকাশক ছিলেন রেভারেন্ড জেমস লঙ। জেনে রাখা ভালো, ১। এটিই প্রথম বাংলা নাটক,যা ইংরেজীতে অনূদিত হয়। ২। কোন বিদেশী প্রকাশক দ্বারা প্রকাশিত কোন বাংলা বইয়ের নামও "নীল দর্পন"। ৩। বিদেশী পত্রিকায় প্রথম কোন বাংলা বইয়ের উপর সমালোচনামূলক প্রবন্ধ প্রকাশিত হওয়ার দাবিদারও এই বইটি। এই বইটির ইংরেজি অনুবাদ ইংল্যান্ডে প্রকাশিত হওয়ার পর এবং দেশ বিদেশে নীলকরদের বিরুদ্ধে প্রবল আন্দোলন ও সমালোচনা শুরু হলে সরকার শেষ পর্যন্ত নীল কমিশন স্থাপন করতে বাধ্য হয়।যা নীলকরদের দৌরাত্ম্য থেকে দরিদ্র কৃষকদের বাচাতে সহায়ক হয়। কাহিনী সংক্ষেপঃ গ্রামের নাম স্বরপুর।গোলকচন্দ্র বসু এ গ্রামেরই সম্ভ্রান্ত মধ্যবিত্ত ও গৃহস্থ সম্পন্ন একজন।স্ত্রী সাবিত্রী, দুই পুত্র নবীন মাধব ও বিন্দু মাধব এবং দুই পুত্রবধূ সৈরিন্ধ্রী ও সরলতাকে নিয়ে তার সুখের সংসার।নবীন মাধব উদারচেতা,প্রজাবৎসল ও হৃদয়বান পুরুষ;বাড়িতে থেকেই বিষয়কর্মের দেখাশোনা করেন।তার ছোট ভাই বিন্দুমাধব কলকাতার কলেজে পড়াশোনা করে। এই পরিবারের বাইরেএ আরেকটি পরিবারের কথাও নাটকে উল্লেখ আছে,সাধুচরনের পরিবার।স্ত্রী রেবতী, কন্যা ক্ষেত্রমনি আর ভাই রাইচরনকে নিয়ে তাদের সংসার।এই সংসারগুলোর সুখ স্থায়ী হয়নি বেশিদিন!কেন? "বাড়া ভাতে ছাই তব বাড়া ভাতে ছাই ধরেছে নীলের যমে আর রক্ষা নাই।" ইংল্যান্ডে নীলের চাহিদা বেড়ে গেলে, বহু নীলকর ইংল্যান্ড থেকে এদেশে আগমন করে।তেমনি এক নীলকরের গ্রাসে পরিণত হয় তাদের ফসলী জমিগুলো।কিন্তু সমস্ত ভালো জমিতে নীল বুনলে তাদের সারা বছরের ভাত জুটবে কি করে? নবীন মাধব কিছু জমি ফসলের জন্য ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ জানালে নীলকর সাহেব গোলকবসুর নামে মামলা করে।কারন বাবাকে গ্রেফতার করলেই নবীন মাধব গোল বাধাতে সাহস করবেনা।বিচারের সম্মুখীন করা হয় গোলক বসুকে।কিন্তু বিচারের নামে হয় প্রহসন!শেষ পর্যন্ত লজ্জা আর লাঞ্চনা মাথায় নিয়ে কারাগারেই মৃত্যুবরন করে গোলক বসু। ওদিকে বিবাহিত ক্ষেত্রমনির উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে নীলকর সাহেবের।জোর করে কুঠিতে তুলে নেয় তাকে।সতীত্ব নাশের চেষ্টাকালে নবীন মাধব কয়েকজন অনুগত প্রজাকে নিয়ে ক্ষেত্রমনিকে উদ্ধার করে।কিন্তু তারপরও সাহবের লাথির আঘাতে সন্তান সম্ভাব্য ক্ষেত্রমনির অবস্থা ক্রমশই খারাপের দিকে যেতে থাকে। বাবার শ্রাদ্ধের আগ পর্যন্ত পুকুর পাড়ের জমিতে নীল না বোনার জন্য নীলকরের প্রতি অনুরোধ জানায় নবীন মাধব,৫০ টাকা সেলামিও দিতে চায়।কিন্তু প্রতি উত্তরে নীলকর সাহেব মৃত বাবার উদ্দেশ্যে হীন মন্তব্য করলে ক্ষীপ্ত হয়ে নবীন মাধব সাহেবের বুকে পদাঘাত করে।ভাড়াটে লাঠিয়ালরা নবীন মাধবকে ঘিরে ফেললে নীলকর সাহেব লাঠি দিয়ে নবীনের মাথায় আঘাত করলে মাটিতে পড়ে যায় সে। এভাবেই এগিয়ে যেতে থাকে ঘটনা,শেষ পর্যন্ত এক ট্রাজিক পরিনতির মাধ্যমে শেষ হয় নাটকের শেষ অঙ্ক। পড়ার আমন্ত্রন রইল। পড়া শেষ হলে, আপনার হয়তো সাদা চামড়ার নাক উচু ইংরেজ নীলকরদের বারবার উচ্চারিত "শালা" আর "বাঞ্চত" শব্দটিকে পায়ের জুতো কিংবা মুখের থুতু বানিয়ে ফিরিয়ে দিতে ইচ্ছে করবে সহস্রবার।

  9. 5 out of 5

    Sudipto Hambir

  10. 5 out of 5

    Somnath Sengupta

  11. 5 out of 5

    Shawon Sarkar

  12. 4 out of 5

    Shafayat Amin

  13. 4 out of 5

    Zahid

  14. 5 out of 5

    Shayaree Meem

  15. 4 out of 5

    SAGAR DEB

  16. 5 out of 5

    Roksana Asma

  17. 4 out of 5

    Khabir

  18. 4 out of 5

    Labonno Anika

  19. 5 out of 5

    Swarna

  20. 5 out of 5

    அவிஜித் ராய்

  21. 5 out of 5

    Md Firoz

  22. 5 out of 5

    Anoshmita Adhikary

  23. 4 out of 5

    Madhurima Ganguly

  24. 4 out of 5

    Yagnabalka Leo

  25. 4 out of 5

    Robiswa

  26. 5 out of 5

    পলাশ

  27. 5 out of 5

    H.s.khan

  28. 5 out of 5

    Farhan

  29. 4 out of 5

    Nahreen

  30. 4 out of 5

    Sayeda Rebeka

Add a review

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading...
We use cookies to give you the best online experience. By using our website you agree to our use of cookies in accordance with our cookie policy.